স্তন্যদায়ী মায়েদের যে খাবারে সতর্ক থাকতে হবে

শিশু জন্মানোর পর মায়ের দুধই হয় তার একমাত্র খাবার। অন্তত ছয় মাস প্রত্যেক শিশুকে স্তন্যপান করানো উচিত। বলা হয়, শিশুকে দেওয়া মায়ের সর্বশ্রেষ্ঠ উপহার হল বুকের দুধ। জন্মের পর প্রথম কয়েক মাস স্তন্যপান করে একটি শিশু যে পুষ্টি পায়,তা তাকে সারা জীবন নানা অসুখ বিসুখ থেকে রক্ষা করে। সন্তানের দুধের ঘাটতি হতে পারে বা মায়ের দুধ পান করে ছোট্ট শিশুর অম্বল, গ্যাস, পেটের সমস্যা দেখা দিতে পারে। মায়ের পুষ্টির দিকে যেমন নজর দিতে হয়, তেমনি বাচ্চা এবং মায়ের শরীর সুস্থ রাখতে এই সময় বেশ কিছু খাবার এড়িয়ে চলা উচিত সমস্ত মায়েদের। আসুন জেনে নেই...

সি ফুড: সি ফুটে থাকে ওমেগা ৩ ফ্যাটি অ্যাসিড, যা বাচ্চার নার্ভ সিস্টেমকে উন্নত করে। কিন্তু এখন সি ফুডে মারকিউরির পরিমান বেশি থাকায় চিকিৎসকরা সি ফুড এড়িয়ে চলতে বলছেন।

মসলাদার খাবার: গর্ভবস্থায় সব হবু মাকেই বেশি তেল ঝাল মসলা দেওয়া খাবার খেতে বারণ করা হয়। বলা হয় স্পাইসি খাবার খেলে গর্ভস্থ শিশুর সমস্যা হবে। বাচ্চা হওয়ার পর অনেক মা-ই ভাবেন এবার মসলাদার খাবার খাবেন। কিন্তু এটা একদম করা উচিত নয়। কারণ মা যা খাবেন বুকের দুধের মধ্য দিয়ে সেটা বাচ্চার শরীরে যাবে। এর ফলে একাধিক সমস্যা দেখা দেবে ছোট্ট শিশুর।

মিষ্টি জাতীয় খাবার: মিষ্টির প্রতি কমবেশি সবার দুর্বলতা থাকে। কিন্তু স্তন্যপান করান যে সব মায়েরা, তাদের মিষ্টি জাতীয় খাবার থেকে দূরে থাকাই শ্রেয়।

চা-কফি: মা বেশি চা কফি খেলে বাচ্চার ঘুমের সমস্যা হবে। শিশু উত্তেজিত হয়ে পড়বে। যার ফলে সে ঘুমোতে চাইবে না। দিনে দুই তিন কাপ চা বা কফি খেতে পারেন একজন মা, কিন্তু তার বেশি হলে বাচ্চার জন্য বিপদ।

মাংস: যেসব মাংসে ফ্যাটের পরিমাণ বেশি থাকে সেসব থেকে দূরে থাকাই ভালো। ফ্যাট বেশি থাকলে সেটা শরীর থেকে টক্সিন শোষণ করে নেবে। সেইসঙ্গে মায়ের ওজন ও বাড়িয়ে দেবে।

অ্যাসিডিক খাবার: ভিটামিন-সি অনেক শিশুর শরীরে কু প্রভাব ফেলে! তাই কমলালেবু, পাতিলেবু, টমেটোর মত জিনিস যাতে ভিটামিন সি বেশি পরিমাণে থাকে, সেই সব থেকে মায়েদের দূরে থাকা দরকার। আপনার শিশু যদি বুকের দুধ খায় তাহলে গ্যাস্ট্রোইনটেস্টাইনাল সমস্যা হতে পারে। ভিটামিন সি আছে এমন খাবার খেলে বাচ্চার স্বাস্থ্যের ওপর নজর রাখুন। বাচ্চার যদি কোনরকম সমস্যা দেখা দেয়, তাহলে সঙ্গে সঙ্গে সেই ফল বা সবজি খাওয়া বন্ধ করে দিন।

আরো কিছু ফল সবজি: উপরের জিনিসগুলো ছাড়াও বাঁধাকপি,বিনস, রসুন, পেঁয়াজ,ডিম, বাদাম স্তন্যদায়ি মায়েরা যত কম খাবেন ততই ভালো।

কিভাবে বুঝবেন বাচ্চার সমস্যা হচ্ছে:
- বাচ্চার পেট ফাঁপা,
- নাক থেকে পানি পড়া,
- মুখ থেকে থুথু পড়া,
- র‌্যাশ বের হওয়া, ইত্যাদি সমস্যা হলে বুঝবেন বাচ্চার সমস্যা হচ্ছে।

এই পাতাটি ৫৩বার পড়া হয়েছে

স্বাস্থ্য প্রবন্ধ