ফার্স্ট এইড বক্সে যা থাকে

১. জীবাণুমুক্ত গজ পিস : ক্ষত থেকে রক্ত পড়া বন্ধ করে ও জীবাণু সংক্রমণ কমায়।
২. রোলার ব্যান্ডেজ : ড্রেসিংকে তার জায়গায় ভালোভাবে আটকে রাখার জন্য বা অতিরিক্ত রক্তপাত হলে।
৩. লিউকোপ্লাস্ট : ব্যান্ডেজ ক্ষতের ওপর আটকানোর জন্য দরকার।
৪. অ্যান্টিসেপটিক লোশন বা ক্রিম : ক্ষত পরিষ্কার ও জীবাণুমুক্ত করতে দরকার হয়।
৫. ট্যুইজারস : শরীর থেকে কাঁটা, কোনো ক্ষুদ্র বস্তু
৬. ক্রেপ ব্যান্ডেজ : হাড় ফেটে গেলে বা কোথাও মচকে গেলে ক্রেপ ব্যান্ডেজ ব্যবহারে ব্যথা কমে, ফোলাও ক্রমে হ্রাস পায়।
৭. সেফটি পিন : কাটা বা ক্ষত থেকে কোনো স্পিলিন্টার সরাতে, ব্যান্ডেজ আটকাতে জায়গামতো ধরে রাখার জন্য সেফটি পিন একটি কাজের জিনিস।
৮. অ্যান্টিহিস্টামিন : যেমন হিস্টাসিন, ফেক্সোফেনাডিন ইত্যাদি।
৯. ব্যথার ওষুধ : যেমন প্যারাসিটামল, আইবপ্রুফেন ইত্যাদি।
১০. বার্ন ক্রিম : পোড়া জায়গায় ব্যথা কমাতে ও ঘা শুকাতে ব্যবহৃত হয়।
১১. থার্মোমিটার।

ওপরের আইটেমগুলো যদি ফার্স্ট এইড বক্সে হাতের কাছে থাকে, তবে প্রাথমিক চিকিৎসা সহজ হয়ে যায়। সঙ্গে কিছু টাকা ও জরুরি কন্টাক্ট নাম্বার থাকলে তো কোনো কথাই নেই। সঙ্গে অভিজ্ঞ কেউ থাকলে 'ফার্স্ট এইড বক্স' প্রয়োজনে বটবৃক্ষের মতো ছায়া দিতে পারে।

দামদর
প্রাথমিক চিকিৎসার উপকরণ ওষুধের দোকানগুলোতে খুঁজলে পেয়ে যাবেন সহজেই। তুলা পাবেন ২০-১৬০ টাকার মধ্যে। প্রতিটি গজের মূল্য পড়বে ২০ টাকার মতো। ক্রেপ ব্যান্ডেজ পাবেন ২০-৬০ টাকায়। আকারভেদে মাইক্রোপোরের দাম ১০০ টাকার মধ্যে। অ্যান্টি সেপটিক দ্রবণ বা ক্রিমের দাম ২০-৬০ টাকা। পোড়া তেল মলমের দাম ৩৫-৪০ টাকা। থার্মোমিটার পাবেন ৩০-৫০ টাকায়।

এই পাতাটি ২৫৮বার পড়া হয়েছে

স্বাস্থ্য প্রবন্ধ




যোগাযোগ
প্যারামেডিকেল রোড
লক্ষ্মীপুর, রাজশাহী
Email: info@rajdoc.com
Phone: +8801753226626

Now 18 visitors online